বরিশাল

মেয়র পদ প্রত্যাশী নাসরিন

অক্সফোর্ড খ্যাত বরিশাল বিএম কলেজের বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রীনিবাসের ছাত্রদলের সভাপতি হিসেবে তার প্রকাশ্যে রাজনীতির মাঠে পথচলা শুরু হয় ১৯৯৪ সালে। সেই থেকে রাজপথ আর ছাড়েননি তিনি। নানা ঘাত-প্রতিঘাত শেষে আজ তিনি কেন্দ্রীয় নেত্রী। দলের চরম দুর্দিনে মামলা-হামলায় একাকার হয়ে এরই মধ্যে তিনি অতি প্রিয় হয়ে উঠেছেন তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাছে। মাঠপর্যায়ের কর্মীরা এখন তাকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে দেখতে চান। তৃণমূল থেকে উঠে আসা সেই নেত্রী হলেন মহানগর বিএনপির সহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা খানম নাসরিন।

আসন্ন সিটি নির্বাচনে নগরবাসীর সেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করতে মেয়র প্রার্থী হতে ইচ্ছুক তরুণ এই নেত্রী নাসরিন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দলের জন্য আন্দোলন-সংগ্রাম করতে গিয়ে এ পর্যন্ত ২৯টি মামলার আসামি হতে হয়েছে আফরোজা খানম নাসরিনকে। অবরোধ-হরতালের এ ধরনের মামলায় তাকে ৭ বার জেলে যেতে হয়েছিল। ১৯৯৬ সালে বরিশালে সরকার বিরোধী আন্দোলনে অংশ নিতে গিয়ে গুলিতে আহত হন তিনি। ২০০২ সালে বিএম কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে ছাত্রত্বও বাতিল হয় তার। ২০০৩ সালে বরিশাল ল’কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচনে তিনি ভিপি পদে প্রার্থী হলে ষড়যন্ত্র করে নির্বাচন বন্ধ করে দেয়া হয়। ২০১০ সালের ২৭ জুলাই ডাকা হরতালে রাজপথে থেকে পুলিশের নির্যাতন ও গ্রেপ্তারের শিকার হন এই নেত্রী। একই বছরের ১৩ নভেম্বর খালেদা জিয়াকে বাসভবন থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে রাজপথে আন্দোলন করতে গিয়ে ঢাকার জাহাঙ্গীর গেটে পুলিশের হামলার শিকার ও পল্টন অফিসের সামনে থেকে গ্রেপ্তার হন নাসরিন। এভাবে আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে পুলিশের দায়ের করা জননিরাপত্তা আইনে মামলাসহ বরিশালে সর্বোচ্চ ২৮টি মামলা এবং ঢাকায় ১টি মামলায় আসামি হতে হয়েছে তাকে। জেলে যেতে হয়েছে ৭ বার।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নগরীর একাধিক ওয়ার্ড বিএনপি নেতা বলেন, আফরোজা খানম নাসরিন তরুণ হলেও রাজপথের পরীক্ষিত সৈনিক। নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডের কর্মীদের সাথে তার রয়েছে নিবিড় যোগাযোগ। তার মত যোগ্য নেতৃত্বকেই সিটি মেয়র হিসেবে মনোনয়ন দেয়া উচিত। এ ব্যাপারে মহানগর বিএনপির সহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা খানম নাসরিন বলেন, দলের প্রতি যে শ্রম এবং ত্যাগ তিনি স্বীকার করেছেন সেসব বিষয় চিন্তা করে দল তাকে আসন্ন বরিশাল সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়ন দিবে বলে আশা করেন। তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে আন্দোলনে মাঠে ছিলেন দীর্ঘ সময়। তারাও তাকে মেয়র হিসেবে দেখতে চান। তিনি বরিশাল নগরীকে একটি সুন্দর এবং ‘গ্রিন সিটি’ হিসেবে গড়ে তুলতে চান, তরুণদের জন্য আত্মকর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে চান। বরিশালের সর্বস্তরের নাগরিকদের নিয়ে সবার জন্য একটি বাসযোগ্য আধুনিক পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তুলতে চান দলের জন্য ত্যাগী এই নেত্রী।

প্রথম প্রকাশঃ দৈনিক আজকের বার্তা, বরিশাল


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...