বরিশাল

কবুতর চুরির অপবাদে দুই স্কুল ছাত্রকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন

আগৈলঝাড়া সংবাদদাতাঃ বরিশালের আগৈলঝাড়ায় কবুতর চুরির অপবাদে দুই স্কুল ছাত্রকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে নবনির্বাচিত এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। গুরুতর আহত অবস্থায় এক ছাত্রকে হাসপাতালে ভর্তি অন্য ছাত্রকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের ছোট বাশাইল গ্রামের খোকন বেপারীর ছেলে ও ছোট বাশাইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্র সাগর বেপারী (১০) এবং একই এলাকার মোহাম্মাদ আলী শিকদারের ছেলে ও বাশাইল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেনীর ছাত্র তুষার শিকদার (১৩)কে কবুতর চুরির অপবাদে শুক্রবার বিকেলে ছোট বাশাইল কালাশাহ মাজারের উত্তর পাশে নারিকেল গাছের সাথে দুই জনকে হাত পা বেধেঁ লোকজনকে মোবাইলে সংবাদ দিয়ে রাজিহার ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য ও ওয়ার্ড বিএনপি প্রচার সম্পাদক মো.বরকতুল্লা মিয়া শারীরিক নির্যাতন করে। এ সংবাদ শুনে সাগরের মা রওশনারা বেগম ঘটনা স্থলে এসে তার ছেলেকে নিযার্তন করার দৃশ্য দেখে ইউপি সদস্যের কাছে অনুরোধ করে ছেলেকে নিয়ে বাড়িতে চলে যায়। দ্বিতীয়বার বাড়ি থেকে ডেকে এনে গাছের সাথে বেধে নির্যাতন করেন তারা। পরে সাগরের মা রওশনারা বেগম ও স্থানীয়রা দুই জনকে উদ্বার করে গুরুতর অবস্থায় সাগরকে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি ও তুষারকে প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

Agailjhara Photo-3এ ঘটনার প্রতিবাদ করার সাগরের মা রওশনারা বেগমকে চুন্নু চৌকিদারের ছেলে নাসির চৌকিদার বাড়ি গিয়ে মারধর করে। সাগরের মা রওশনারা বেগম সাংবাদিকদের জানান, আমার ছেলেকে ইউপি সদস্য বরকতুল্লা মিয়া গাছের সাথে বেধে নির্যাতন করে আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই। সংবাদ পেয়ে শনিবার দুপুরে এসআই হাবিবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মো.ইলিয়াস তালুকদার সাংবাদিকদের জানান, এই নির্যাতনের ঘটনা আমার জানা নেই। তবে ওসি আমাকে ফোনের মাধ্যমে এ ঘটনা জানিয়েছেন।

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মো.বরকতুল্লা মিয়া বলেন কবুতর চুরি ঘটনা নিয়ে ছোট ছোট ছেলেরা মারামারি করেছে। কাউকে গাছের সাথে বেধেঁ নির্যাতন করা হয়নি।

এ ঘটনায় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে এক এসআইকে পাঠানো হয়েছে। স্কুল ছাত্রের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দিলে আমার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply