বরিশাল

বিচ্ছিন্ন সহিংস ঘটনার মধ্য দিয়ে আগৈলঝাড়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন

প্রবীর বিশ্বানস ননীঃ বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বিচ্ছিন্ন সহিংস ঘটনার মধ্য দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শেষ হয়েছে। উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ সমর্থীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী গৈলা ইউনিয়নের শোয়েব ইমতিয়াজ লিমন, বাকাল ইউনিয়নের বিপুল দাস, রাজিহার ইউনিয়নের ইলিয়াস তালুকদার, বাগধা ইউনিয়ন আমীনুল ইসলাম বাবুল ভাট্টি, রত্মপুর ইউনিয়নের গোলাম মস্তফা সরদার বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। সংঘর্ষের কারণে ভোট বন্ধ হয়েছে একাধিক কেন্দ্র। মঙ্গলবার সকাল থেকেই প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা উৎসব মূখর পরিবেশে ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে ভোট প্রদান করতে দেখা গেছে। সকাল গড়িয়ে বেলা বাড়ার সাথে সাথেই বিভিন্ন স্থানে সহিংস ঘটনার সূত্রপাত ঘটে। বিশেষ করে সাধারন সদস্য (মেম্বর) প্রার্থীদের কর্মী সামর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বেলা ১১ টায় আমবৌলা কেরামতিয়া আলিয়া মাদ্রসা কেন্দ্রে বিএনপি চেয়ারম্যান প্রার্থী রেজাউল করিমের সমর্থকদের হামলায় ভোট গ্রহণ বন্ধ হয়ে যায়। একই সময় পঃ বাগধা মাধ্রমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সংঘর্ষের কারণে ভোট গ্রহন বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া সংঘর্ষে উপজেলা সদরে বিএইচপি একাডেমী কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ বন্ধ হয়ে যায়। অন্য দিকে উত্তর শিহিপাশা, দঃ চাঁদত্রিশিরা, বারপাইকা, ভালুকশী, আমবাড়ীসহ বিভিন্ন স্থানে ভোট কেন্দ্রে গোলোযোগ দেখা দিলেও ভোট গ্রহণ চলে। সন্ধায় ফলাফল ঘোষনার পর বাকাল ইউনিয়নের পাকুরিতা, ফেনাবাড়ি, রত্মপুর ইউনিয়নের তালবাজার, রাজিহার ইউনিয়নের ভালুশী, রাংতা, গৈলা ইউনিয়নের ফুল্লশ্রীসহ বিভিন্ন স্থানে সহিংশ ঘটনায় প্রায় ৪০জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা রোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নজরদারি বৃদ্ধি করেছে।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply