জাতীয়

এইচএসসি পরীক্ষার ফল বুধবার

২০১৪ সালের উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল বুধবার প্রকাশিত হবে। আটটি সাধারণ এবং মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষার ফল ওই দিন বেলা দেড়টায় একযোগে প্রকাশ করা হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপ-প্রধান তথ্য কর্মকর্তা সুবোধ চন্দ্র ঢালী জানান, সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানদের নিয়ে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলাফলের অনুলিপি হস্তান্তর করবেন।

এবারও ভিডিও কনফারেন্সে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী।

মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুর সরকারি কলেজ, দিনাজপুর সরকারি মহিলা কলেজ, দিনাজপুরের উথরাইল সিদ্দিকীয়া কামিল মাদ্রাসা এবং দিনাজপুর টেকিনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলবেন।

সুবোধ চন্দ্র ঢালী জানান, বেলা একটায় শিক্ষামন্ত্রী সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন। বিগত কয়েক বছর ধরে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা শেষের ৬০ দিনের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে। আগামী ১৫ আগস্ট পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিন পূর্ণ হওয়ার আগেই এবার ফল প্রকাশ হবে।

গত ৩ এপ্রিল সারা দেশে একযোগে এইচএসসি, আলিম ও এইচএসসি (বিএম/ভোকেশনাল) ও ডিআইবিএস পরীক্ষা শুরু হয়ে শেষ হয় গত ৮ জুন। দশটি বোর্ডের অধীনে ১১ লাখ ৪১ হাজার ৩৭৪ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেন।

এবার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ উঠলে ঢাকা বোর্ডের ইংরেজি দ্বিতীয়পত্রের পরীক্ষা স্থগিত করে নতুন করে পরীক্ষা নেওয়া হয়। সরকারের গঠিত তদন্ত কমিটি ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র ছাড়াও গণিত দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ পায়। তবে গণিত পরীক্ষাটি বাতিল বা স্থগিত করা হয়নি।

এদিকে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ঢাকা, রাজশাহী, কুমিল্লা, যশোর, চট্টগ্রাম, বরিশাল, সিলেট, দিনাজপুর এবং মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি, আলিম, এইচএসসি (ভোকেশনাল) ও ডিআইবিএস পরীক্ষার ফল বেলা দেড়টায় শিক্ষা বোর্ডসমূহের ওয়েবসাইট, সংশ্লিষ্ট সকল পরীক্ষা কেন্দ্র/শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ওয়েব মেইল) এবং এসএমএসের মাধ্যমে একযোগে প্রকাশ করা হবে।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট থেকে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষা কেন্দ্রের আওতাধীন সকল প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ তাদের পরীক্ষার্থীদের ফল সংগ্রহ করতে পারবেন। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, বোর্ড প্রকাশিত ফল ওয়েবসাইট, সংশ্লিষ্ট সকল পরীক্ষা কেন্দ্র/শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহকে ওয়েব মেইল এর মাধ্যমে সংগ্রহ করতে হবে।

সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহ ওয়েব মেইল এর মাধ্যমে প্রাপ্ত ফল ডাইনলোড করে প্রকাশ করার জন্য www.educationboard.gov.bd ওয়েবসাইটের ওয়েব মেইল ব্যবহার করে প্রতিষ্ঠানের EIIN এর মাধ্যমে ফল ডাউনলোড করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফল স্ব স্ব কেন্দ্র/শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে সংগ্রহ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শীর্ষ প্রতিষ্ঠান বাছাইয়ের ক্ষেত্রে ৫টি প্যারামিটার অনুসরণ করা হয়েছে। এগুলো হলো: নিবন্ধিত প্রার্থীদের মধ্যে নিয়মিত পরীক্ষার্থীর পাসের হার, শতকরা পাসের হার, মোট পরীক্ষার্থীদের মধ্যে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির হার, পরীক্ষার্থীর সংখ্যা এবং প্রতিষ্ঠানের গড় জিপিএ। শিক্ষাবোর্ড, শিক্ষা মন্ত্রণালয় বা পত্রিকা অফিসে কোনো ফল পাওয়া যাবে না।

ইন্টারনেটে ফল
পরীক্ষার্থীগণ শিক্ষা বোর্ডসমূহের ওয়েবসাইট www.educationboardresults.gov.bd এবং সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফল সংগ্রহ করতে পারবেন।

মোবাইলে ফল
যে কোনো মোবাইল থেকে এসএমএসের মাধ্যমে ফল পেতে মেসেজ অপশনে গিয়ে HSC অথবা Alim লিখে স্পেস দিয়ে শিক্ষা বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে পাসের সাল লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

উদাহরণ স্বরুপ: সাধারণ বোর্ডের জন্য HSC Dha 123456 2014, মাদ্রাসা বোর্ডের জন্য Alim Mad 123456 2014 এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের জন্য HSC Tec 123456 লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

পুনঃনিরীক্ষণ
পুনঃনিরীক্ষণের জন্য এসএমএসের মাধ্যমে ১৪ আগস্ট থেকে ২০ আগস্টর পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হবে।

এজন্য শুধু টেলিটক মোবাইল থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিয়ে শিক্ষা বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখে স্পেস দিয়ে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে। প্রতিটি বিষয় বা পত্রের জন্য ১৫০ টাকা ফি প্রযোজ্য। ফিরতি এসএমএসে আবেদন ফি বাবদ কত টাকা কেটে নেওয়া হবে তা জানিয়ে একটি পিন নম্বর দেওয়া হবে। আবেদনে সম্মত থাকলে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিয়ে YES লিখে স্পেস দিয়ে পিন নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে মোবাইল নম্বর দিয়ে পূণরায় ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

যেসব বিষয়ের দুটি পত্র (যেমন: বাংলা ও ইংরেজি) রয়েছে, সেসব বিষয়ে একটি বিষয় কোডের বিপরীতে আবেদন দুটি পত্রের আবেদন হিসেবে বিবেচিত হবে এবং আবেদন ফি ৩০০ টাকা ফি নেওয়া হবে। একই এসএমএসে একাধিক বিষয়ের আবেদন করা যাবে, এক্ষেত্রে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে কমা দিয়ে লিখতে হবে।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো পোষ্ট...