গৌরনদী পরিচিতি

গৌরনদী উপজেলার পটভূমি

বরিশাল জেলার ঐতিহ্যবাহী ও সমৃদ্ধ একটি উপজেলার নাম গৌরনদী। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে এ উপজেলার রাজনৈতিক ও সামাজিক গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে।

‘‘গৌরনদী’’র নামকরণ নিয়ে সুনির্দিষ্ট কোন লিখিত ইতিহাস নেই। ‘‘গৌরনদী’’র নামকরন সম্পর্কে নামকরণ কাছ থেকে পাওয়া তথ্যই মানুষ জানে। এক সময় গৌরনদী সদরসহ বৃহত্তর গৌরনদী (আগৈলঝাড়াসহ)র গোটা এলাকা ছিল নদী দ্বারা বেষ্টিত। গৌরনদীর পূর্বাঞ্চলে রয়েছে আড়িঁয়াল নদী। আর আড়িঁয়াল খার শাখা নদী হচ্ছে পালরদী নদী। এক সময় পালরদী ছিল স্রোতস্বিনী নদী।

গৌরনদীর প্রবীনজন ও ইতিহাসবিদদের সংজ্ঞা মতে, আড়িঁয়াল খাঁ নদীর শাখা নদী পালরদী নদীকে ঘিরেই গৌরনদীর নামকরণ করা হয়। এ নদীর সাথে গৌরনদীর সংযুক্ততা রয়েছে। আড়িঁয়াল খাঁ নদীর শাখা নদী পালরদী নদীর প্রবাহমান পানির রং ছিল গৌড় বর্ণের। সে অনুসারে গৌড়ওবং নদী যুক্ত হয়ে ‘‘গৌরনদী’’ র নামকরণ করা হয়েছে।

গৌরনদী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ মোঃ তমিজ উদ্দিন ও গৌরনদীর ইতিহাস লেখক প্রফেসর মোসলেম উদ্দিন শিকদারের একাধিক লেখায় গৌরনদীর নামকরণের আদি ইতিহাস হিসেবে এ তথ্যের উল্লেখ্য রয়েছে। বরিশালের ইতিহাস লেখক সিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ তার বইয়ে নদীর নামানুসারে গৌরনদীর নামকরণের কথা উল্লেখ করেছেন।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না