আন্তর্জাতিক

পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ সীমান্ত বন্ধের নির্দেশ

বর্ধমানের একটি বাড়িতে বোমা বিষ্ফোরনের ঘটনা নিয়ে ভারতের গোয়েন্দারা তৎপরতা দেখাচ্ছেন। গোয়েন্দাদের ধারনা, বাংলাদেশের জঙ্গি গোষ্ঠী সংগঠন জামাতুল মুজাহিদিন এই বোমা তৈরী করতে গিয়ে বিষ্ফোরন হয়েছে। এই ঘটনার পর সীমান্তবর্তী এলাকায় ব্যাপক সতর্কতা জারি করে ভারত। তারই ধাারবাহিকতায় এবার বাংলাদেশ-পশ্চিমবঙ্গের পাঁচ সীমান্তবর্তী জেলার সীমান্ত বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের পাঁচ সীমান্তবর্তী জেলা যথাক্রমে উত্তর ২৪ পরগনা, নদীয়া, মুর্শিদাবাদ, মালদহ ও দক্ষিণ দিনাজপুরে অন্তত ৬৫টি জঙ্গি শিবির সক্রিয়। ভারতীয় গোয়েন্দা এনআইএ (ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি) ও সিআইডির (ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট) দাবি, বাংলাদেশের জঙ্গি গোষ্ঠী সংগঠন জামাতুল মুজাহিদিন ও পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই এদের মদদ দিচ্ছে। ভারতের নানা জায়গায় নাশকতা চালানোই এই জঙ্গি শিবিরগুলোর উদ্দেশ্য। গত বৃহস্পতিবার বর্ধমানে বিস্ফোরণে ২ জন নিহতের ঘটনা তদন্ত নেমে গোয়েন্দারা এমন তথ্য পেয়েছেন। তদন্তের স্বার্থে পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ সীমান্তজুড়ে কড়া সতর্কতা জারি করেছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ প্রশাসন। পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ সীমান্ত বন্ধেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বর্ধমান-কাণ্ডের তদন্ত নেমে গোয়েন্দারা সীমান্তবর্তী এলাকায় জঙ্গি শিবিরগুলো সম্পর্কে জানতে পারে পুলিশকে ফাঁকি দিতে খোলা জায়গায় নয়, জনবহুল জায়গায় গোপনে চলছে জঙ্গিদের কার্যকলাপ। জামাতুল মুজাহিদিন ও আইএসআইয়ের মদদে পশ্চিমবঙ্গে দেশবিরোধী কার্যকলাপ চালাচ্ছে সিমি বা স্টুডেন্টস ইসলামিক মুভমেন্ট অফ ইন্ডিয়া।

গোয়েন্দাদের দাবি, পাঁচটি জেলায় সংখ্যালঘু গরিব পরিবারগুলোকে ‘টার্গেট’ করছে সিমি। তারপর ওই পরিবার থেকে কিশোর, বেকার যুবকদের টাকার লোভ দেখিয়ে ভিড়িয়ে নিচ্ছে নিজেদের দলে। কীভাবে গুলি চালাতে হয়, বোমা বিস্ফোরণ ঘটাতে হয়, দেশের বিরুদ্ধে বিদেশী শক্তিকে সাহায্য করতে হয়, এ সব শেখানো হচ্ছে।

এই সব তথ্য পাওয়ার পর সোমবার রাজ্য পুলিশের মহাপরিচালক (ডিজি) জি এম পি রেড্ডি পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে স্পেশাল আইজি (সিআইডি) দয়মন্তী সেনের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকের পর পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পুলিশের ডিজি পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকা সিল (বন্ধ) করে দেওয়ার নির্দেশ দেন। পাশাপাশি রাজ্য পুলিশকে কড়া সতর্ক অবস্থায় থাকারও নির্দেশ দেন তিনি। এ ছাড়া রাজ্যের প্রতিটি থানাকে নাশকতা প্রতিরোধে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন ডিজি জি এম পি রেড্ডি।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...