ফিচার

৫টি উপায়ে নিজেই হয়ে উঠুন নিজের শ্রেষ্ঠ বন্ধু

আমরা অনেকেই অনেক সময় একাকীত্বতায় ভুগি। মনে হয় আমাদের আশেপাশে কেউ নাই, কোন বন্ধু নেই আমাদের সাহায্য করার জন্য। জীবনে চলার পথে নিজেদের একা ভেবে থমকে যাই। এই থমকে পথকে গতিময় করতে আমরা নিজেরাই হয়ে উঠতে পারি নিজেদের সবচেয়ে ভালো বন্ধু। দেখে নিন কিভাবে আপনিই হয়ে উঠতে পারেন আপনার শ্রেষ্ঠ বন্ধু।

১। প্রতিনিয়ত নিজের ক্ষমতাকে চ্যালেঞ্জ করুনঃ

আপনি যদি আপনার ট্র্যাকের সবচেয়ে দ্রুততম দৌড়বিদ হন, তাহলে আপনার ট্র্যাক চেঞ্জ করার সময় হয়ে গেছে। “আমার আর কিছু জানার বা করার প্রয়োজন নেই” এই ধারণা নিজেদের ক্ষতি করার সবচেয়ে বড় ফাঁদ। আমরা যখনই এরকম মনে করি তখন আমরা আর নিজেদেরকে ডেভেলপ করার কোন চেষ্টা করিনা, এর ফলে আমরা আগের জায়গাতেই রয়ে যাই। মনে রাখবেনে, যখন “I know enough” চিন্তা করে আমরা বসে থাকি, তখন কেউ না কেউ নতুন কিছু করার এবং জানার জন্যে চেষ্টা করে যাচ্ছে। সুতরাং, নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠুন এবং নিজেকে প্রতিনিয়ত ডেভেলপ করুন।

২। নিজের স্বপ্নপূরণে দায়বদ্ধ থাকুনঃ

ডায়মন্ড তৈরি হয় কয়লা থেকে। কয়লা প্রচণ্ড তাপে আর চাপের বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে পরিণত হয়  ডায়মন্ডে। জীবনে আমরা যদি অনেক মূল্যবান হতে চাই তাহলে আমাদেরকেও এরকম কষ্টের মাঝ দিয়ে যেতে হবে। যদি সাকসেসফুল হতে চান, আপনাকে চেষ্টা করে যেতে হবে, যদি নিজের স্বপ্নগুলো সত্যি করতে চান তাহলে স্বপ্নের জন্যে কাজ করে যেতে হবে, যদি সফলতা চান, তাহলে হাল ধরে থাকতে হবে। কোন শর্টকাট বা বিলাসিতার মাধ্যমে আমরা জীবনে উন্নতি করতে কখনোই পারব না।

৩। আপনি পরিস্থিতির শিকার নন, আপনি আপনার নিজের চিন্তার শিকারঃ 

আমরা বিভিন্ন পরিস্থিতিতে কিভাবে টিকে থাকব তা নির্ভর করে আমাদের ওপর। আমাদের চিন্তা ধারণা এবং কাজের ওপরই নির্ভর করবে সফলতা অথবা ব্যর্থতা। নিজেদেরকে পরিস্থিতির শিকার মনে করে আমরা কাঁধে দায়িত্ববোধ না নেয়াকে জাস্টিফাই করার চেষ্টা করি। কিন্তু দিনশেষে পরিস্থিতি যাই হোক, সেটার প্রতি আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি এবং আমরা কিভাবে রিঅ্যাক্ট করছি সেটাই মূল। কারন মনে রাখবেন, the same boiling water softens the potato but hardens the egg. It is about what you are made of, not the situation.

৪। নিজের জীবনে পরিবর্তন আনুনঃ 

জীবনে এমন অনেক অবস্থায় আমরা পরি যখন মনে হয় আমাদের সামনে একটি বন্ধ দরজা এবং আমাদের যাওয়ার কোন জায়গা নেই। একটি বন্ধ দরজার লক যেমন আমাদের নিজ হাতে খুলতে হয়, তেমনি আমাদের জীবনের বন্ধ দরজাগুলোও আমাদেরকেই খুলতে হবে। সুতরাং বাঁধা দেখে থেমে না থেকে, দরজার লকের মত জীবনকেও ঘুড়িয়ে ফেলুন, এবং সামনে এগিয়ে যান।

৫। আশা হারাবেন না, থেমে যাবেন নাঃ 

আমাদের জীবনের বিপদগুলোকে যদি পানিতে পরে যাওয়ার সাথে তুলনা করি, তাহলে ভাবুন পানিতে পরে যাওয়া মানে যেমন ডুবে যাওয়া না তেমন বিপদে পরা মানেও সব উপায় শেষ হয়ে যাওয়া না। বিপদে পড়লে আমাদের উচিত যথাযথ অ্যাকশন নেয়া, বুদ্ধি কাজে লাগিয়ে বের হওয়ার চেষ্টা করা, প্রয়োজনে অন্যদের সাহায্য নেয়া। সুতরাং যদি জীবনে আটকে গিয়ে থাকেন, সেটাই শেষ নয়। সেখান থেকেও উঠে আসা সম্ভব, এবং আপনার নিজের দ্বারাই সম্ভব।

ডন সামদানি


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...