ফিচার

রমজান মাসে কার্যকরী থাকার ৫টি উপায়

রমজান হচ্ছে বছরের সেই সময় যখন আমার আমাদের দৈনন্দিন স্বাভাবিক রুটিনের কিছু পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাই। এই পরিবর্তনের ফলে আমাদের সারা দিনের রুটিন পুনরায় সাজাতে হয়, কিভাবে আমরা আমাদের সময়গুলো কাটাবো, কিভাবে কাজ করব সবকিছুই ঢালাও করে গোছাতে হয়। রমজান আমাদেরকে সুযোগ দেয় সময়ের সর্বোত্তম ব্যবহার, আত্মীক ও শারিরীক প্রশান্তি, এবং আমাদের জীবন ধারা পুনর্গঠনের। আজকে আপনাদের সাথে কিছু কৌশল শেয়ার করব যার মাধ্যমে এই মাসের সময়কে আরও বেশী কার্যকরী করতে পারবেন।

আগেই পরিকল্পনা করুন

আপনি যদি রমজানকে ফলপ্রসু করতে চান তাহলে আপনাকে আগে থেকেই  পরিকল্পনা করতে হবে। আপনার উদ্দেশ্যের একটি চেকলিস্ট করে ফেলুন এবং সে অনুযায়ী পরিকল্পনা করুন। উদাহরন স্বরূপ, যদি আপনি রমাযানে একটি স্বাস্থ্যকর ডায়েট চান তাহলে খাদ্য তালিকার পরিকল্পনা করুন এবং সে অনুযায়ী তৈরি হোন। আপনার লক্ষ্যগুলো সুনির্দিষ্ট রাখুন।

যদি কোন কারনে লক্ষ্য থেকে সরে যান তাহলে নিরাশ না হয়ে পুনরায় লক্ষ্য অর্জনের পুর্ন উদ্দ্যম নিয়ে দ্রুত মনযোগ দিন।

রমজান কোন খাদ্য উৎসব নয়

আমরা আমাদের ডায়েটের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে না পারার মূল কারন হলো ইফতারের সময় অতিরিক্ত আহার। আমরা মাঝে মাঝে এতই বেশী পানাহার করে ফেলি দেখা যায় যে কাজের কোন ধরণের আগ্রহই কাজ করে না। ডুবো তেলে ভাজা খাবার আমাদের পরিহার করতেই হবে, সেটা যতই মুখরোচক হোক না কেন। গতানুগতিক ইফতারের তালিকা থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করুন।  স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহন করুন।  পর্যাপ্ত ফলমুল,  হালকা খাবার ও স্বাস্থ্যকর পানীয় গ্রহন করুন। আপনার খাদ্য তালিকার প্রভাবিত করবে আপনার কাজের আগ্রহকে।

সকালের সময়টা ব্যবহার করুনঃ

সেহেরির পরবর্তী সময়টি হচ্ছে সর্বোত্তম সময় ফলপ্রসু কাজে নিজেকে যুক্ত করার জন্য। যদি আপনার বাড়তি সময় থাকে, আপনার পছন্দমত কোন বই পড়তে পারেন,  সুর্যদয়ের  সময় বাইরে গিয়ে কিছুক্ষন হাটতে পারেন অথবা এমন কিছু করতে পারেন যেটার জন্য সাধারণত আপনি সময় করে উঠতে পারেন না। এই সময় আমাদের ব্রেইনে নতুন চিন্তা ও সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটে, সুতরাং এর সঠিক  ব্যবহার করাই উত্তম।

পরিবারকে সময়  দিনঃ

রমজান মাস আমাদেরকে পরিবারের সাথে বেশি সময় কাটানোর সুযোগ করে দেয়। পরিবার,  আত্নীয়সজন,  বন্ধুবান্ধবদের সাথে শুধুমাত্র ইফতার করার জন্য নয় তাদের সাথে সেহেরি খাওয়াও আজকাল খুব প্রচলিত। চেষ্টা করবেন মাঝে মধ্যে ইফতারের আনন্দটা সবার সাথে মিলে মিশে ভাগাভাগি করে নিতে। আপনার বাড়তি সময় প্রিয় মানুষদের সাথে ব্যয় করুন, তাদের খোঁজ খবর নিন, ইফতার বানাতে সাহায্য করুন এবং সর্বোপরি কিছু মানসম্মত সময় কাটান।

জনসেবার জন্যে কিছু করুনঃ

রমজান মাসে অসংখ্য সুযোগ রয়েছে বিভিন্ন সামাজিক ও জনসেবা মুলক কাজে যুক্ত হবার। আপনার সুবিধামত সুযোগ খুঁজে বের করুন এবং উপযুক্ত ক্ষেত্রে অংশগ্রহণ করুন। যেকোন সামাজিক উদ্দ্যোগের দ্বায়িত্ব নিতে পারেন অথবা কোন চলতি কার্যক্রমের অংশ হতে পারেন।

রমজান আমাদের আশেপাশের পৃথিবীকে বসবাসের জন্য আরো উন্নত করার সুযোগ নিয়ে আসে, এটি শুধুমাত্র একটি মাসের বিশুদ্ধতা নয় বরং সারা বছরের।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...