খেলাধুলা

সাইফ-তাসামুলের পর নাসিরের সেঞ্চুরি

সাইফ হাসান ও তাসামুল হক সেঞ্চুরির খুব কাছেই ছিলেন। জাতীয় ক্রিকেট লিগের পঞ্চম রাউন্ডের প্রথম দিন শেষে ৮৯ রানে অপরাজিত ছিলেন ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের এই দুই ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় দিনে এসে নিজেদের স্কোরকে সেঞ্চুরিতে পরিণত করেছেন সাইফ ও তাসামুল। আর দ্বিতীয় দিনে সেঞ্চুরি করে ১০৫ রানে অপরাজিত আছেন রংপুর বিভাগের নাসির হোসেন। সব মিলিয়ে দ্বিতীয় দিনে তিনটি সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছে জাতীয় লিগ।

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে ভালোই জবাব দিচ্ছে খুলনা বিভাগ। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিনশেষে পাঁচ উইকেটে ১৯৫ রান তুলেছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দল খুলনা। তুষার ইমরান ৭১ রানে অপরাজিত আছেন। খুলনার দুই ওপেনার মেহেদী হাসান ৩৭ ও হাসানুজ্জাজামান ৩১ রান করেছেন। এছাড়া ৩৪ রান করেন মোহাম্মদ মিঠুন।

তবে প্রথম ইনিংসে এখনও ঢাকা বিভাগের চেয়ে ১৭১ রানে পিছিয়ে আছে খুলনা। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৩৬৬ রান করেছিল পয়েন্ট টেবিলের দুই নম্বর দল ঢাকা বিভাগ। রকিবুল হাসান ১১১ এবং সাইফ হাসান ১০৯ রান করেন। ৪৫ রান করেন জয়রাজ সেখ। খুলনার বিভাগের অধিনায়ক আবদুর রাজ্জাক ১০৩ রান খরচায় পাঁচ উইকেট নেন।

বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে বরিশাল বিভাগকে লড়াইয়ে টিকিয়ে রেখেছেন ৪৪ বছর বয়সী আল আমিন ও স্পিনার মনির হোসেন। এদের ব্যাটিংয়ে প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেটে ১৬৫ রান তুলে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে বরিশাল বিভাগ। আল আমিন ৪৫ ও মনির ৪০ রানে অপরাজিত আছেন। প্রথম ইনিংসে এখনও ঢাকা মেট্রোর চেয়ে ১২৭ রানে পিছিয়ে আছে বরিশাল। এরআগে ব্যাট করে প্রথম ইনিংসে মোহাম্মদ আশরাফুলদের দল ঢাকা মেট্রো ২৯২ রান তোলে।

সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে সিলেট বিভাগের বিপক্ষে নাসির হোসেনের ব্যাটে এগিয়ে যাচ্ছে রংপুর বিভাগ। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে পাঁচ উইকেটে ১৭৫ রান তুলেছে রংপুর। বিপিএলে বেশ ভালো খেলেও জাতীয় দলে উপেক্ষিত থেকে যাওয়া অলরাউন্ডার নাসির হোসেন ১০৫ রানে অপরাজিত আছেন। প্রথম ইনিংসে সিলেটের চেয়ে ৯৭ রানে পিছিয়ে আছে রংপুর। রংপুরের যাওয়া পাঁচ উইকেটের চারটিই নিয়েছেন সিলেটের খালেদ আহমেদ। এরআগে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে জাকের আলীর ৮৮ রানের সুবাদে ১০ উইকেটে ২৭২ রান তোলে সিলেট।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চট্টগ্রাম বিভাগের বিপক্ষে ভালো ব্যাটিং করতে পারেনি রাজশাহী বিভাগ। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ২২৩ রান তুলতেই আট উইকেট খুইয়ে বসেছে তারা। অধিনায়ক জহুরুল ইসলাম অমি সর্বোচ্চ ৯০ রান করেছেন, জুনায়েদ সিদ্দিকীর ব্যাট থেকে এসেছে ৬২ রান। প্রথম ইনিংসে চট্টগ্রামের চেয়ে ৯২ রানে পিছিয়ে আছে রাজশাহী। চট্টগ্রামের প্রথম ইনিংস শেষ হয়েছিল ৩১৫ রানে। অধিনায়ক ইরফান শুকুর ৯০ রানে আউট হলেও তাসামুল হক খেলেছেন ১০৪ রানের দারুণ এক ইনিংস।


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply