শীতেও যেন হাড়ের জয়েন্ট থাকে সুস্থ

পরিবেশের তাপমাত্রা কমে যাওয়ার পাশাপাশি হঠাৎ করেই শরীরের সমস্যাগুলো বৃদ্ধি পেতে থাকে। জয়েন্টের ব্যথা এমনই একটি সমস্যা। কিন্তু এই শীতেও যেন আপনার শরীরের জয়েন্টগুলো স্বাস্থ্যবান ও শক্তিশালী থাকে সেজন্য দিল্লীর ম্যাক্স সুপার স্পেশালিটি হসপিটালের অর্থোপেডিক্স ডিপার্টমেন্টের বিভাগীয় প্রধান ও প্রধান কনসালটেন্ট ডা. অনিল অরোরা সহজ কিছু টিপস দিয়েছেন। বিশেষজ্ঞের দেয়া টিপসগুলো জেনে নিই চলুন।

১। নি-গার্ড পরুন

শীতের সময় হাঁটুকে সুরক্ষা দেয়ার জন্য এবং ব্যথা কমানোর জন্য নি গার্ড পরুন। বাজারে বিভিন্ন ধরণের নি-প্রোটেক্টর পাওয়া যায় যা হাঁটুর ব্যথা থেকে আরাম দেবে এবং হাঁটুকে আঘাত পাওয়া থেকে রক্ষা করবে।

২। পর্যাপ্ত পানি পান করুন

জয়েন্টের ব্যথা থেকে মুক্ত হতে সাহায্য করে পানি। কিন্তু শীতে অনেকের পানি পান করার পরিমাণ কমে যায়। জয়েন্ট নড়াচড়া করার সময় যে ঘর্ষণ হয় তা ঠিকভাবে পরিচালনার জন্য পানি প্রয়োজন। তাই আপনার অস্থি ও জয়েন্টগুলোকে সুস্থ রাখার জন্য পর্যাপ্ত পানি পান করুন।

৩। সঠিক জুতা পরুন

সঠিক মাপের জুতা পরা হাঁটু, গোড়ালি ও জয়েন্টকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। বেশীরভাগ মানুষই সঠিক মাপের জুতা পরার বিষয়টিকে উপেক্ষা করেন। উঁচু হিলের জুতা দীর্ঘ সময় ধরে পরে থাকা উচিৎ নয়। এমন জুতা পরুন যাতে আঙ্গুলের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা থাকে এবং হাঁটার সময় স্বস্তি পান।

৪। অবস্থানের পরিবর্তন করুন

আপনাকে যদি কাজের জন্য ফিল্ড ওয়ার্কে যেতে হয় অথবা আপনি যদি রেস্টুরেন্টে বা শপিং মলে কাজ করেন তাহলে আপনাকে দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। এক্ষেত্রে কিছুক্ষণ পর পরই নিজের দেহভঙ্গির পরিবর্তন করুন যাতে শুধুমাত্র পায়ের উপর বেশি চাপ না পড়ে।

৫। ব্যায়ামের পূর্বে ওয়ার্ম আপ করে নিন

কঠোর কোন ব্যায়াম শুরু করার পূর্বে ওয়ার্ম আপ করে নেয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। এর ফলে শরীর অনেক বেশি নমনীয় হবে এবং আঘাত পাওয়া এড়িয়ে যেতে পারবেন। এছাড়াও এর ফলে রক্ত সংবহনের  উন্নতি হয় এবং ব্যায়ামের আউটপুট ভালো পাওয়া যায়।

৬। সুষম খাদ্য খান

জয়েন্টের ব্যথায় যারা ভোগেন তাদের সুষম খাদ্য খাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন ডি, সি ও কে সমৃদ্ধ খাবার জয়েন্টের ব্যথার জন্য ভালো। কমলা, পালংশাক, বাঁধাকপি ও টমেটোর মত সুপারফুড হাঁটুর ব্যথা থেকে মুক্ত হতে সাহায্য করে।

৭। নিয়মিত শারীরিকভাবে সক্রিয় থাকুন

শীতে অনেকেই ব্যায়াম করাটাকে এড়িয়ে চলেন। শারীরিক সক্রিয়তার অভাবের কারণেই শীতের সময়ে জয়েন্টের ব্যথা হয়। এতে জয়েন্টগুলো শক্ত হয়ে যায় এবং সামান্য নড়াচড়াতেও ব্যথা করে। তাই শীতের সময়েও নিয়মিত ব্যায়াম করুন।

৮। ধূমপান বাদ দিন

যারা ধূমপান করেন তাদের হাড়ের ঘনত্ব কমে যায় এবং হাড় ও জয়েন্টের সমস্যা হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। হাড়কে শক্তিশালী রাখতে ধূমপান বাদ দিন।

৯। ফিজিওথেরাপি নিতে পারেন

যদি আপনি অষ্টিওআরথ্রাইটিসে ভোগে থাকেন তাহলে আপনার নিয়মিত ফিজিওথেরাপি নেয়া দরকার। এতে করে জয়েন্টের ব্যথা থেকে মুক্ত হতে পারবেন।

১০। ক্যালসিয়াম গ্রহণ করুন

স্বাস্থ্যকর হাড় ও জয়েন্টের জন্য ক্যালসিয়াম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি খনিজ। একারণেই ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার যেমন – দুধ, পনির, পালংশাক, সামুদ্রিক মাছ ও তিল বীজ ইত্যাদি খাবার এবং ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিৎ।

সূত্র:  দ্যা হেলথ সাইট


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

শেয়ারঃ

মন্তব্য করুন