মুক্তচিন্তা

ভার্জিনিটি

আমেরিকান ছেলেরা তাঁদের গার্লফ্রেন্ডের ভার্জিনিটির ধার ধারে না। গার্লফ্রেন্ডের পূর্বে চৌদ্দটি ছেলের সাথে শারীরিক সম্পর্ক থাকলেও কিছু যায় আসে না। গার্লফ্রেন্ড তাঁর সাথে রিলেশন থাকা অবস্থায় চীট না করলেই হলো। একই নিয়ম বয়ফ্রেন্ডের বেলাতেও আমেরিকান মেয়েদের এসব নিয়ে মাথা ব্যথা নেই।

সমস্যা হয়ে গেছে আমাদের। আমাদের ‘ভার্জিনিটি’ নিয়ে আপাত মুহূর্তে লেজে-গোবরে অবস্থা। আমরা প্রেম করার সময় ‘আমেরিকান’ প্রেম করতে চাই, কিন্তু বিয়ে করার সময় ‘খাঁটি বাঙালী’ বিবাহ করতে চাই। আমাদের বর্তমান সময়কার প্রজন্মের প্রেমে শারীরিক সম্পর্ক না থাকলে সে প্রেমকে ম্যাড়ম্যাড়ে বা বোরিং বলে ধরে নেয়া হচ্ছে। সবচেয়ে অবাক করা ব্যাপার। মেয়েরাও আস্তে আস্তে এই ব্যপারটা মেনে নিচ্ছে। “প্রেম টিকিয়ে রাখতে যদি ‘সেক্স’ কম্পালসরী হয়, তাহলে সেক্সে ক্ষতি কি…??” এই যুক্তি তাঁদের মাথায় সেট হয়ে গেছে দিনে দিনে। অবশ্য সিচুয়েশন তাঁদের এটা মেনে নিতে একপ্রকার বাধ্য’ই করে দিয়েছে।

এখন প্রবলেমটা হয়েছে অন্য জায়গায়। বাসর রাতে সব বাঙালী ছেলেই কোন এক বিচিত্র কারণে গাইনী ডাক্তার হয়ে যায়। তারা খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে বের করতে চায়, বউ এর সতীচ্ছদ পর্দা ঠিক আছে তো? নাকি আগেই কেউ হরণ করেছে। স্বামী ভদ্রলোক তখন নিজের ঝুলিতে কয়টি মেয়ের সতীচ্ছদ জয় করা আছে, সেটা কোন এক বিচিত্র কারণে ভুলে যান।

কোন কারণে মেয়েটা ‘ভার্জিন’ না হলে তো কথা’ই নেই। বিবাহবিচ্ছেদ বিষয়টা এখনো আমাদের দেশে তেমন ‘কুল’ হয়ে উঠে নি। তবে এক’ই বিছানায় দুজন দু’পাশে মুখ করে শুয়ে থাকার নিয়ম এদেশে অনেক প্রাচীন। বিয়ের পর বেডরুমে শান্তি না থাকা মানে দুনিয়া অশান্ত হয়ে যাওয়া।

প্রিয় প্রজন্ম, ভবিষ্যতের কথা একবার ভাববে কি…??
— ফ্র্যাঙ্ক অ্যাভিগন্যাল

লিখেছেন :

Lima Kabir Lima Kabir

(এই বিভাগে প্রকাশিত মতামতের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে)


ফেসবুকে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। Gournadi.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে Gournadi.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো পোষ্ট...

Leave a Reply